কোন শিক্ষকের নয়, ধর্ম কটাক্ষকারীর বিচার হয়েছে

শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তের বিচার হয়েছে শিক্ষক হিসাবে নয়। এখানে ধর্মকে কটাক্ষ করার অপরাধে সামাজিকভাবে তার বিচার করা হয়েছে। সেলিম ওসমানের পরিচয়ও এখানে মুখ্য বিষয় নয়। শনিবার হেফাজতে ইসলামী ঢাকা মহানগরীর যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, শ্যামল কান্তি ধর্মকে অপমান করে যখন জনরোষের শিকার হন, তখন সেখান থেকে বাঁচতে সেলিম ওসমানের সহযোগিতা চান। এখানে সেলিম ওসমান তাকে বাঁচিয়ে দিয়েছেন।
হেফাজতে ইসলাম ওসমান পরিবারের পক্ষ নিয়েছে এমন অভিযোগ সঠিক নয় জানিয়ে মামুনুল হক বলেন, ওসমান পরিবারের সাথে হেফাজতের বিরোধ আছে। নারায়ণগঞ্জের মাটিতে দাঁড়িয়ে শামীম ওসমান হেফাজতকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য ভাষায় অনেক কথা বলেছেন। হেফাজতকে কটাক্ষ করে বক্তব্য রেখেছেন। সেই ব্যাপারে হেফাজতের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ আছে। কিন্তু এখানে হেফাজত এই পরিবারের নয়, সত্যের পক্ষে অবস্থান নিয়েছে।
তিনি বলেন, সম্প্রতি আওয়ামী লীগসহ অনেকের হাতেই ছাত্র শিক্ষক লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু সেখানে তথাকথিত মুক্ত চিন্তার মানুষরা প্রতিবাদ করেনি। কিন্তু দেখা যাচ্ছে শ্যামল কান্তির পক্ষে মুক্ত চিন্তার নামধারী মানুষরা তার পক্ষে দাঁড়িয়েছে। কারণ এখানে আল্লাহকে অপমান করে কথা বলা হয়েছে।
হেফাজতের এই নেতা বলেন, একজন সাংসদ যখন আল্লাহর কটুক্তিকারীর বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছেন, তখন আমাদের কাজ হচ্ছে তার হাতকে শক্তিশালী করা। এটা এখন আমাদের নৈতিক দায়িত্ব হয়ে দাঁড়িয়েছে। এটি আমরা করবই।

Open