ধানমন্ডি লেকে কিশোরকে প্রকাশ্যে পেটানোর ভিডিও নিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় তোলপাড়

ব্যাক্তিগত রেষারেষির জের ধরে বন্ধুকে প্রকাশ্যে মারধরের ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করেছেন জুনায়েদ আল ইমরান নামে এক কিশোর। ফেসবুকে এ ভিডিও আপলোড করে জুনায়েদ নামের এ কিশোর লিখেছেন, “এ ছেলেটি ‘ম্যাপল লীফ’ ও ‘অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল’র মেয়েদের নিয়ে আজেবাজে মন্তব্য করেছে। আমার বিশেষ একজন মানুষকে নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করেছে। মারটা বেশি হয়ে গেছে মনে হয়। ভিডিওটা ছড়িয়ে দিন।”
রাজধানীর ধানমন্ডি লেকে করা ভিডিওর প্রথম থেকেই সাদিয়া নামের জুনায়েদর এক বান্ধবীকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের অভিযোগ তুলে মোহাম্মদ নুরুল্লাহ নামের আরেক কিশোরকে এলোপাথাড়ি মারছিল। তবে প্রথম থেকেই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিল নুরুল্লাহ। নুরুল্লাহ বারবার বিষয়টি ভুল বোঝাবোঝি হিসেবে উল্লেখ করলেও জুনায়েদ তা মানতে চায়নি।
প্রায় সাত ঘন্টা পর জুনায়েদ ফেসবুক থেকে ভিডিওটি সরিয়ে নেয়। এর পরপরই ঘটনাটি নিয়ে নিজের ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন নুরুল্লাহ। সেখানে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন তিনি। ভিডিওটি এরই মধ্যে ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে গেছে। ভিডিওটি নিয়ে তীব্র ক্ষোভ জানিয়েছেন বহু ফেসবুক ব্যাবহারকারী। প্রথমিকভাবে চেষ্টা করেও উভয়পক্ষের কারো সাথে যোগাযোগ করা যায়নি।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশে এর আগেও বিভিন্ন সময় প্রকাশ্যে মারধরের ভিডিও করে তা সামাজিক যোগাযেগের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এটিকে অমানবিক, সামাজিক মূল্যবোধের অবক্ষয় ও ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন মনোবিদ ও আইনবিদরা। কয়েকটি ক্ষেত্রে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে অপরাধীকে গ্রেফতারও করেছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open