অবশেষে আটক হলেন ১০০০ কুমারির শয্যাসঙ্গী যোগগুরু

অবশেষে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে গ্রেগরিয়ান বিভোলারু (৬৪)। ১০০০ কুমারিকে শয্যাসঙ্গী করার অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। সর্বশেষ সে ১৫ বছর বয়সী একটি বালিকা অ্যাগনেস আরাবেলা মারকুইসের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে। সে একটি যোগ ব্যায়ামের স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছিল। সেখানে হাজার হাজার মানুষের সমাগম হতো। তার মধ্যে ছিল ১৫ বছর বয়সী ওই বালিকা। তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের খবর প্রকাশিত হলে লোকজন তার আস্তানায় হামলা চালায়।

অভিযোগ করা হয়, সেখানে মাত্রা অতিক্রম করে যৌন সম্পর্ক গড়ে তোলা হয়। গ্রেগরিয়ান বিভোলারু রোমানিয়ার যোগগুরু। অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের অভিযোগে ২০০৪ সাল থেকে সে ছিল পুলিশি দৌড়ের ওপর। ২০১৩ সালে আদালত তাকে ছয় বছরের জেল দেয়। এরপর থেকেই সে পলাতক। কিন্তু সম্প্রতি সে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে প্যারিসে। আর তাই পুরনো হলেও এ ঘটনাটি উঠে এসেছে বৃটিশ মিডিয়ায়।
এতে বলা হয়েছে, ওই যোগগুরু নিজেই দাবি করেছে যে, সে ১০০০ কুমারি মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়েছে। ২০০৪ সালে যখন অপ্রাপ্ত বয়স্ক ওই বালিকার সঙ্গে তার শারীরিক সম্পর্কের খবর প্রকাশিত হয় তখন তার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে রোমানিয়া। এক পর্যায়ে তাকে আটক করে সুইডেন। কিন্তু তাকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেয় ওই দেশটি। সেখানে সে ম্যাগনাস অরোলসন নাম ধারণ করে। সর্বশেষ তাকে আটক করা হয় ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে। এখন তাকে রোমানিয়ায় ফেরত পাঠানো হবে কিনা সে সিদ্ধান্ত নেবেন বিচারকরা।
উল্লেখ্য, ১৯৯০ এর দশকে মুভমেন্ট ফর স্পিরিচুয়াল ইন্টিগ্রেটশন ইন অ্যাবসলিউট নামে যোগ ব্যায়ামের প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে সে। মাত্র ১৭ বছর বয়সে সে শুরু করে যোগ ব্যায়াম চর্চা। অল্প সময়ের মধ্যে এ খাতে বেশ নাম করে ফেলে। ফলে ভক্তরা দলে দলে তার কাছে যাওয়া শুরু করে। এ সুযোগ ব্যবহার করে বিভোলারু। সে বেছে বেছে কুমারি মেয়েদের দিকে নজর ফেলে। তাদেরকে শারীরিক সম্পর্কের বিনিময়ে দিব্যশক্তি দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। সহজে তার প্রতারণার ফাঁদে পা রাখে কুমারিরা। তাকে যে অ্যাগনেস আরাবেলা মারকুইসের মামলায় জেল দেয়া হয়েছে সেই অ্যাগনেস এখন বাস করেন পর্তুগালে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open