ধুমপানে আয়ু বৃদ্ধি, দাবি ১১২ বছরের বৃদ্ধার!

ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। মরণব্যাধি ক্যানসারসহ নানা জটিল রোগের কারণ ধূমপান। চিকিৎসকদের এই সতর্কবাণী সবারই জানা। কিন্তু নেপালে ১১২ বছরের এক বৃদ্ধা দাবি করছেন, ধূমপান করলে মানুষ দীর্ঘদিন বেঁচে থাকে। তার প্রমাণ তিনি নিজে। ৯৫ বছর ধরে তিনি ধূমপান করছেন। ধূমপানের কারণেই নাকি এত দীর্ঘদিন বেঁচে আছেন তিনি!
প্রতিবেদনে বলা হয়, বাতুলি লামিচান নামের ওই নারী প্রতিদিন ৩০টির বেশি সিগারেট খান। এভাবেই ধূমপান করে আসছেন ৯৫ বছর ধরে। এই ধূমপানের জন্যই তিনি এত দিন বেঁচে আছেন! ১৯০৩ সালে জন্ম নেয়া এই নেপালি নারী ১৭ বছর বয়সে ধূমপানে আসক্ত হন।
বাতুলির ভাষ্য, “আমার বয়স কত তা কখনোই গ্রাহ্য করি না। আমার দীর্ঘ জীবনে অনেক পরিবর্তন দেখেছি। আমি ৯৫ বছর ধরে ধূমপান করছি। ধূমপানে আসলেই কোনো ক্ষতি নেই।”
ধূমপানের ঝুঁকি সম্পর্কে আধুনিক চিকিৎসাবিজ্ঞানের সতর্কবাণীকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বাতুলি নিয়মিতই ধূমপান করে যাচ্ছেন। তবে বাণিজ্যিকভাবে তৈরি সিগারেট না খাওয়ার জন্য ধূমপায়ীদের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। বাতুলি নিজেও এই ধরনের সিগারেট এড়িয়ে চলেন। স্থানীয়ভাবে তৈরি ‘বিডিস’ নামের এক ধরনের সিগারেট খান তিনি। এর ভেতরে টেন্ডু নামের এক পাতা থাকে, যা তামাকপাতা দিয়ে মোড়ানো থাকে।
বাতুলির স্বামী আট দশক আগে তাকে ছেড়ে ভারতে চলে যান। তার পাঁচ সন্তানের মধ্যে বড় ছেলের বয়স ৮৪ বছর। অন্য চার সন্তান অনেক আগেই মারা গেছে। গত বছরের ভয়াবহ ভূমিকম্পে বাতুলির বাড়িঘর ধ্বংস হয়ে যায়। এরপর থেকে একটি মন্দিরে বসবাস করছেন তিনি। বাকি জীবনটা এখানেই কাটানোর বাসনা তার। বাতুলি মনে করেন, আধুনিক যুগের ছেলেমেয়েরা অনেক বেশি হতাশা ও চাপের মধ্যে থাকে। তারা বেশি কাজ করতে পারে না। বৃদ্ধ বয়সে অলস হয়ে যায় তারা। ফলে তারা দীর্ঘদিন বেঁচে থাকতে পারে না। বাতুলির কথামতে, দীর্ঘদিন বেঁচে থাকতে হলে আপনাকে হতে হবে কর্মক্ষম। একই সঙ্গে হতাশা ও চাপমুক্ত জীবন যাপন করতে হবে। সব সময় আপনাকে হাসিখুশি ও সুখী থাকতে হবে। তাহলেই দীর্ঘদিন বেঁচে থাকবেন আপনি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open