খালেদার বক্তব্য রাষ্ট্রদ্রোহের সংজ্ঞার মধ্যে পড়ে না

মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সন্দেহ প্রকাশ, আইনের রাষ্ট্রদ্রোহের সংজ্ঞার মধ্যে পড়ে না উল্লেখ করে আইন বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক বলেছেন, পেনাল কোর্টের ১২৪ এর (ক) যেখানে রাষ্ট্রদ্রোহের কথা বলা আছে। কী করলে রাষ্ট্রদ্রোহীতা হবে। ওখানে যেটি বলা আছে, যে কেউ তাঁর কোনো বক্তব্যের মাধ্যমে সরকারের প্রতি ঘৃণা, অসন্তোষ এবং অসন্তোষ মাধ্যমে সরকার উৎখাতের প্রচেষ্টা হতে পারে বা না হলেও সরকারের বিরদ্ধে প্রচ- ঘৃণা এবং অসন্তোষ তৈরি করতে হবে। প্রচ- ঘৃণা এবং অসন্তোষ বেআইনিভাবে করতে গেলে সেটি হবে রাষ্ট্রদ্রোহীতা।
রোববার রাত নয়টায় যমুনা টেলিভিশনকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি একথা বলেন।
শাহদীন মালিক বলেন, খালেদা জিয়া মহান মুক্তিযুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধদের সংখ্যা নিয়ে যে সন্দেহ প্রকাশ করেছে তা নিঃসন্দেহে অন্যায় এবং সমালোচনাযোগ্য এবং এটিকে আমরা সমর্থন করি না। তবে এটি নিয়ে সন্দেহ প্রকার করা বা বিতর্ক তৈরি করা এবং এর মাধ্যমে সরকার উৎখাত, সরকারের প্রতি প্রচ- ঘৃণা বা সরকারের প্রতি প্রচ- অসন্তোষ তৈরির উপাদান আছে বলে আমরা মনে হয় না। এবং খালেদা জিয়া মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা নিয়ে যে সন্দেহে প্রকাশ করেছে তাতে আইনে যে রাষ্ট্রদ্রোহীতার সংজ্ঞা সেটির সাথে কোনো মিল নেই।
শাহদীন মালিক আরো বলেন, বর্তমানে আমাদের আইনের যে অবস্থা তাতে কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ আনলেই আদালত ওটাকে আমলে নিয়ে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠাতে পারে। আমাদের আইনে যেকোনো লোকের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দেওয়া খুব সহজ হয়ে গেছে এবং সরকার বার বার সেই সুযোগ নিচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open