বাঘে মানুষে ভয়ঙ্কর লড়াই

গ্রামের পাশেই জঙ্গল। বিভিন্ন সময় সেখান থেকে শিয়াল, হায়না, হাতি বেরোয়। এ সব নিয়েই জীবনযাপনে অভ্যস্ত পশ্চিমবঙ্গের বেলপাহাড়ির মেছুয়া গ্রামের বাসিন্দারা। কিন্তু শোনা যাচ্ছে, বৃহস্পতিবার বাঘ হানা দিয়েছে গ্রামে। তাতে জখম হয়েছেন ৫ জন।
গ্রামের পাশে থাকা মাঠে বেগুন তুলতে বেরিয়েছিলেন কয়েকজন, তখনই ঝোপ থেকে বেরিয়ে অতর্কিত হামলা চালায় গ্রামবাসীদের উপরে। কোনওমতে সঙ্গে থাকা লাঠি, কোদাল দিয়ে প্রতিহত করে রক্ষা পান। কয়েকজন আবার কাঠ কাটতে বেরিয়ে জঙ্গলের মুখেই হামলার শিকার হয়েছেন। বেলা এগারোটার মধ্যে ৫ জন গ্রামবাসী এই হামলায় জখম হয়ে ভর্তি হয়েছেন হাসপাতালে। আক্রান্তদের বর্ণনা অনুযায়ী সেটি বাঘ।
এতজন হামলায় পড়ে জখম হওয়ার পরে মেছুয়া গ্রামে আতঙ্ক ছড়ায়। গ্রামবাসীরা জানতে পারেন আক্রমণকারী প্রাণীটি গ্রামের প্রান্তে একটি বাঁশ ঝাড়ে রয়েছে। গ্রামবাসীরা বাঁশঝাড়কে ঘির রেখে খবর দেয় পুলিশকে। এর পরেই বেলপাহাড়ি থানা থেকে বন দফতরে খবর যায়।
কয়েক ঘণ্টার মধ্যে গোয়ালতোড় ও ঝাড়গ্রাম থেকে জনা পনেরো বনকর্মী ঘুমপাড়ানি বন্দুক নিয়ে হাজির হয়ে যায় মেছুয়া গ্রামে। বেলপাহাড়ি থানার পুলিশ সহ কয়েকশো গ্রামবাসী ও বনদফতরের কর্মীরা বাঁশঝাড় ঘিরে তল্লাশি চালায় বাঘের সন্ধানে। বাঘের পায়ের ছাপ দেখতে পেয়েছেন বনদফতরের কর্মীরা।
ইতিমধ্যে এই হামলায় আহতদের সকলকে বেলপাহাড়ি হাসপাতাল থেকে ঝাড়গ্রাম জেলা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অম্বুজ মাহাত বলেন, আমি নিশ্চিত সেটা বাঘ। ঝোপে লুকিয়ে ছিল। আমার ঘাড়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে। পাশে লোক ছিল বলেই লাঠি দিয়ে পিটিয়ে তাড়াতে পেরেছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open