গর্ভধারণ এড়াতে গর্ভনিরোধক রিং এর ব্যবহার জেনে নিন!

গর্ভনিরোধক রিং সম্পর্কে অনেকেই জানেন আবার অনেকেই জানেন না। এটি এমনই একটি গর্ভ নিরোধক ব্যবস্থা যেটি গর্ভ নিরোধে সাধারণ পিলের মতই ৯৯ শতাংশ পর্যন্ত কার্যকরী ভূমিকা রাখে। সম্প্রতি গবেষকরা ধারণা করছেন যে, ভবিষ্যতের একটি কার্যকরী গর্ভনিরোধক ব্যবস্থা হিসেবে সারা বিশ্বব্যাপী এটি স্বীকৃতি পাবে।
ব্যবহার বিধি :
কন্ট্রাসেপটিভ রিং বা গর্ভনিরোধক এই রিংটি যোনিতে এক ধরনের প্লাস্টিকের প্রাচীর তৈরি করে যা গর্ভাশয়ে শুক্রাণু প্রবেশে বাঁধা প্রদান করে থাকে। নোভা রিংয়ের মত দেখতে এই রিংটি মাসে একটি করে ব্যবহার করতে হয়। হালকা চেপে ধরে হাত দিয়েই যোনিতে প্রবেশ করানো যায় এই রিংটি। পিরিয়ডের আগে পর্যন্ত ২১ দিন পর্যন্ত এই গর্ভনিরোধক রিংটি ব্যবহার করা যায়।
প্রতি মাসে এই রিংটি ব্যবহারের ফলে যোনি থেকে ইস্ট্রোজেন এবং প্রোজেস্টিন নামক হরমোন সঠিক পরিমাণে নিঃসৃত হয়ে থাকে। পিরিয়ডের আগে এই রিংটি যোনি থেকে বের করে ফেলতে হয় এবং পিরিয়ড পরবর্তী সময়ে নতুন আরেকটি রিং ব্যবহার করতে হয়।
উপকারিতাঃ

• সহজে প্রবেশ করানো এবং বের করা যায়।
• প্রতিবার মিলনের পূর্বে এই রিং এর কথা চিন্তার প্রয়োজন পড়ে না।
• ডায়রিয়া হলে অথবা বমি করলে এটির কোন ক্ষতি হয় না।
• মাসিক এর পূর্বের নানা সমস্যা কমাতে এটি সাহায্য করে।
• মাসিক নিয়মিত এবং ব্যথাহীন করতে সাহায্য করে।
• ডিম্বাশয়, জরায়ু এবং কোলন ক্যান্সার এর ঝুঁকি কমায়।
• ফাইব্রয়েডস, ডিম্বাশয় সিস্ট এবং নন ক্যান্সারাস স্তনের রোগের ঝুঁকি কমায়।
যাদের জন্য এই পদ্ধতি উপযুক্ত নয়ঃ

• যদি কখনো রক্তনালীতে রক্ত জমাট বাঁধার ইতিহাস থেকে থাকে।
• যাদের হৃদপিণ্ড অথবা রক্তপ্রবাহ কিংবা উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যা আছে।
• যাদের বয়স ৩৫ বছরের বেশি এবং ধূমপানের অভ্যাস আছে কিংবা পূর্বে ধূমপান ছেড়ে দেয়ার ইতিহাস থাকলে।
• যাদের প্রচন্ড মাইগ্রেনের সমস্যা আছে।
• যাদের বিগত ৫ বছরে স্তন ক্যান্সার ছিল।
• যাদের ডায়বেটিস রয়েছে।
• যাদের ওজন বেশি।
• বিশেষ ধরণের কিছু ওষুধ সেবন করলে।
• যদি জরায়ু পেশি রিংটি ধরে রাখতে না পারে।

যদি আপনি ধূমপান না করেন এবং উপরের সমস্যাগুলো না থাকলে ৫০ বছর বয়স পর্যন্ত এই রিং টি ব্যাবহার করা যাবে বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন।
গবেষণা :
সম্প্রতি দ্য পপুলেশন কাউন্সিল বায়োমেডিকেল এবং জনস্বাস্থ্যের লক্ষ্যে দুটি ধাপে ৩ টি ক্লিনিকাল টেস্টে নতুন গর্ভনিরোধক রিং এর গবেষণা করেন যার মেয়াদ ১ বছর পর্যন্ত স্থায়ী। জাতীয় শিশুস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট এবং হিউম্যান ডেভলপমেন্ট কন্ট্রাসেপটিভ ডিসকভারি ও ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রামের ডিরেক্টর ডায়না ব্লিথে বলেন, নতুন এই রিংটি যে শুধু দীর্ঘস্থায়ী তাই নয় এটিতে আরও কিছু সুবিধাও রয়েছে যেমন এটি ফ্রিজে রাখার প্রয়োজন হয় না এবং গাঠনিক বৈশিষ্ট্যে কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে যা নারীদের ব্যবহারে বেশ সুবিধা দিয়ে থাকে। এছাড়া এরই মধ্যে এটি কনডমের বিপরীতেও কার্যকরী একটি গর্ভনিরোধক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে চলেছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open