‘নিকৃষ্টতম বিয়ের প্রস্তাব’

কাঙ্ক্ষিত সঙ্গীকে পেতে মানুষ কতো কিছুই না করে! অনেকে সর্বস্ব ত্যাগ করে হলেও ভালোবাসার মানুষকে পেতে চান। আবার অনেকে সরাসরি না বলতে পেরে মনের কথা জানাতে আশ্রয় নেন নানান পন্থা বা কৌশলের। কিন্তু পছন্দের মানুষকে পেতে রাশিয়ান পুলিশের একজন সদস্য যা করেছে তা রীতিমত বিরল। প্রভাবশালী ইংরেজি সংবাদপত্র ‘মিরর’ তাকে ‘নিকৃষ্টতম বিয়ের প্রস্তাবনা’ বলে মন্তব্য করেছে। আর এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সকলেই দাঙ্গা পুলিশে কর্মরত বলে নিশ্চিত করেছে রাশিয়ার রিন টিভি।
মিরর জানিয়েছে, একজন তরুণীর গাড়ি থামার জন্য সিগন্যাল দেয় পুলিশের একটি বিশেষ টহল দল। থামার পর তিনজন মুখোশধারী দাঙ্গা পুলিশ গাড়িটিকে ঘিরে ধরে। ওই সময় তরুণীর সঙ্গী ছিলো আরও একজন তরুণ। দু’জনকে গাড়ি থেকে নামিয়ে পিঠমোড়া করে হাঁটুগেড়ে বসিয়ে দেওয়া হয়।
তরুণীটি তখন আতঙ্কগ্রস্থ, কাঁদতে শুরু করেছে। কিন্তু এরপরই তার সামনে আসে নতুন এক বিস্ময়! চোখে যখন ভয়ের পানিতে ভরে উঠেছে; ঠিক তখনই গাড়ির পেছনে গিয়ে একগুচ্ছ বেলুন বের করে আনেন ওই পুলিশ দলের এক সদস্য।
এরপর বেলুনগুলো পুলিশের ওই সদস্য তরুণীর দিতে এগিয়ে দিলে তিনি আরো বিস্মিত হয়ে যান। কোনো ভাবেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না ওটা তারই জন্য। শেষ পর্যন্ত তরুণীর ভুল ভাঙতে নিজের মুখোশ খুলে ফেলে ছেলেটি। এরপর তাকে চিনতে পারে তরুণীটি। এরপর ছেলেটি একটি রিং এগিয়ে দিয়ে বলে ‘উইল ইউ ম্যারি মি।’
উত্তরে মেয়েটি বলে ‘আই উইল।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open