ওই বেডা ওই, একদিনের জন্য বাঙালী কি রে? বাঙালী চিরজীবনের জন্য বাঙালী

কুমার বিশ্বজিৎ কে কুদ্দুস বয়াতি

দেশের বেসরকারী নিউজ ভিত্তিক চ্যানেল ’এটিএন নিউজ’ এ এক সাক্ষাৎকার দেন ’এই দিন দিন নয় আরো দিন আছে, এই দিনেরও নিবা তোমরা সেই দিনেরও কাছে, খ্যাত সংগীত শিল্পী কুদ্দুস বয়াতি।
উক্ত সাক্ষাৎকারটি আমাদের নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল,
তিনি বলেন, অবসর সময় আমি ঘুরাই, বাহিরে বন্ধু-বান্ধবের সাথে আড্ডা দেই, বাসায় বসে টেলিভিশন দেখি। কারণ এখন প্রোগ্রাম কম। তিনি গানের সুরে বলেন, আমি আগের কথা ভাবতে গেলে কিছুই খুঁজে পাইনা, কই গেলো সেই রসে ভরা দিন গুলি আমার।
তিনি ক্ষোভ করে বলেন, আপনারা যদি মনে করেন এই বয়সে কুদ্দুস বয়াতি বুড়ো হয়ে গেছে তাহলে ভুল করবেন। কারণ এখনো আমার সুর আছে। আমি গাইতে পারি, নাচতে পারি, আমি দেখাইতে পারি। তাহলে আমাকে ব্যাবহার করবেন না কেন আপনি? আপনি নিত্য নতুন ছেলেদের নিয়ে নাচতেছেন। নতুন ছেলেরা আছে, আমরা ও থাকবো। আমি সরকার কে অনুরুধ করবো, লোক সংগীত গান থাকবে। এটা বাপ দাদার আমলের গান। জাতীয় সংগীত গাওয়ার পর লোক সংগীত শিল্পীরা গান করবে, এর পরে বিদেশী শিল্পীরা গাইবে। বিদেশী যন্ত্র যারা নিয়ে আসছে কি বোর্ড, এইডা, হেইডা। আগে থাকবে এক তাঁরার গান। জাতীয় সংগীত গাওয়ার পর লোক সংগীত শিল্পীরা গান গাইবে এর পর আকাশ সংস্কৃতির এরা গাইবে। যারা আকাশ থেকে উড়ে এসেছে।
কুমার বিশ্বজিৎ এর কণ্ঠে গাওয়া ’তোমরা একতারা বাজাইয়ো না, দোতরা বাজাইয়ো না’ গানটির সমালোচনা করে কুদ্দুস বয়াতি বলেন, কি আজাইরা এক গান বানাইছে, তোমরা একতারা বাজাইয়ো না, দোতরা বাজাইয়ো না’, একতারা বাজাইলে মনে হইরা যায়, দোতরা বাজাইলে মনে হইরা যায় একদিন বাঙালী ছিলাম রে। আরে বেডা একদিন বাঙালী মানে? বাঙালী চিরজীবনের জন্য বাঙালী বেডা। ৩০ লক্ষ্য লোকে প্রাণ দিছে, জান দিছে বাংলা ভাষার জন্য। বাংলা মায়ের ভাষার জন্য। আর তোরা গান বানাস, ’তোমরা একতারা বাজাইয়ো না, দোতরা বাজাইয়ো না, তোমরা মুগ্লাই খাইয়ো। আর গাই কিনা, ’তোমরা গিটার বাজাইয়ো না, ড্রামসেট বাজাইয়ো না, গিটার বাজাইলে মনে হইরা যায়, ড্রামসেট বাজাইলে মনে হইরা যায় এই যন্ত্র হাওলাত আনছি রে, ওই যন্ত্র হাওলাত আনছি রে।
উল্লেখ্য, ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সংগৃহীত।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open